fbpx

কর্ণফুলী এক্সপ্রেস: কক্সবাজার সেন্টমার্টিন সরাসরি জাহাজের খুঁটিনাটি

গতকাল ৩০ জানুয়ারি ২০২০ উদ্বোধন হয়ে গেলো বহুল প্রতীক্ষীত কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিনের সরাসরি জাহাজ কর্ণফুলী এক্সপ্রেস। উদ্বোধনের পর আজ ৩১ জানুয়ারি ২০২০ থেকে নিয়মিত চলাচল শুরু করেছে জাহাজটি। আসুন দেখে নেই এই জাহাজের বিস্তারিত, কখন ছাড়ে, টিকেটের মূল্য, টিকেটের প্রাপ্তীস্থানসহ সবকিছু।

গতিপথ:
এতদিন পর্যন্ত আমরা টেকনাফ জেটিতে যেয়ে সেন্টমার্টিনগামী জাহাজে উঠতাম। কিন্তু কর্ণফুলী এক্সপ্রেস চালু হওয়াতে কক্সবাজার থেকে সরাসরিই সেন্টমার্টিনে যাওয়া যাবে। কক্সবাজার এয়ারপোর্টের পেছনে নুনিয়ার ছড়া বিআইডব্লিউটিসি ঘাট থেকে উত্তর বাঁকখালী নদী হয়ে বঙ্গোপোসাগরে উঠবে জাহাজটি। এরপর মেরিন ড্রাইভের সাথে সমান্তরাল সমুদ্রপথ ধরে সেন্টমার্টিন পৌঁছাবে। ফলে সমুদ্র ভ্রমণের পাশাপাশি দেখা মিলবে পাহাড়সারিরও।

বাঁকখালী নদীতে কর্ণফুলী এক্সপ্রেস। ছবি: কর্ণফুলী এক্সপ্রেসের ফেইসবুক পেইজ

আসন বিন্যাস ও ভাড়ার তালিকা:
কর্ণফুলী এক্সপ্রেসে সর্বমোট ধারণ ক্ষমতা ৫৪৭ জনের। বর্তমানে জাহাজটিতে ৫১০টি আসন ও ১৭টি কেবিন আছে। সর্বনিন্ম ভাড়া আসা-যাওয়া ২,০০০ টাকা থেকে শুরু। ভাড়ার তালিকা নিচে দেয়া হলো:

দ্বিতীয় শ্রেণির চেয়ার: ২,০০০ টাকা
প্রথম শ্রেণির চেয়ার: ২,৫০০ টাকা
দ্বিতীয় শ্রেণির কেবিন: ১২,০০০ টাকা
ভিআইপি কেবিন: ১৫,০০০ টাকা

কেবিনের ভাড়া দুজন যাত্রীর জন্য প্রযোজ্য, এর বেশি যাত্রী থাকলে অতিরিক্ত প্রতি জনের জন্য দ্বিতীয় শ্রেণির চেয়ারের টিকেট কিনতে হবে। এছাড়া যাত্রার দিনই ফিরে না এসে অন্য দিন আসতে হলে সেটা টিকেট কেনার সময় জানালে সেভাবেই আসার দিন উল্লেখ করে টিকেট দেয়া হবে।

সময়সূচি:
কক্সবাজার থেকে প্রতিদিন সকাল ৭ টায় ছেড়ে যাবে। আর সেন্টমার্টিন থেকে বিকেল ৩:৩০ মিনিটে ফিরতি যাত্রা শুরু করবে। সূর্যাস্ত ও সামগ্রিক অবস্থা বিবেচনা করে ফেরার সময় আরেকটু পেছানো হতে পারে। কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিনের জলপথের দূরত্ব প্রায় ৯৫ কিলোমিটার। এই পথ পাড়ি দিতে জাহাজটির সময় লাগবে মোটামুটি ৫ ঘণ্টা। সে হিসেবে, সকাল ৭ টায় ছেড়ে গেলে বেলা ১২ টার দিকে সেন্টমার্টিন পৌঁছাবে এবং বিকেল সাড়ে তিনটায় রওনা হলে কক্সবাজার পৌঁছাবে সন্ধ্যয় পৌঁছাবে রাত সাড়ে আটটায়।

প্রথম দিনের যাত্রায় কর্ণফুলি এক্সপ্রেস। ছবি: নাফিজ হোসেন

ছাড়ার স্থান:
কর্ণফুলী এক্সপ্রেস কক্সবাজার থেকে ছাড়বে নুনিয়ার ছড়া বিআইডব্লিউটিএ ঘাট থেকে। যাঁরা ঘাটটি চিনেন না তাদের সুবিধার্থে গুগল লোকেশন দেয়া হলো। কক্সবাজার এয়ারপোর্টের পেছনে নুনিয়ার ছড়া বিআইডব্লিউটিএ ঘাট। কক্সবাজারে হোটেল-মোটেল জোন থেকে নুনিয়ার ছড়া পৌঁছাতে মোটামুটি ৩০ মিনিট সময় লাগবে, তাই সময় বিবেচনা করে হোটেল থেকে বের হবেন। অটো নিয়ে ঘাটে আসলে ১৫০ টাকার মতো ভাড়া দিতে হবে (দরদাম করে নিবেন)।

নুনিয়ার ছড়া ঘাটের অবস্থান। ছবি: গুগল থেকে

সেন্টমার্টিন থেকে কর্ণফুলী এক্সপ্রেস সেন্টমার্টিন জেটি থেকেই ছাড়বে। টেকনাফগামী অন্যান্য জাহাজও একই সময়ে একই ঘাট থেকে ছেড়ে যায় বলে এ সময়টায় ভালো ভিড় হয়। সেন্টমার্টিনে আপনার হোটেল/রিসোর্ট এর অবস্থান কোথায় সেটার উপর নির্ভর করবে কত সময়ের মধ্যে জেটিতে আসতে পারবেন। পশ্চিম বিচে থাকলে ত্রিশ মিনিট সময় লাগতে পারে। সময়মতো উপস্থিত হওয়টা তাই জরুরি।

জাহাজের পেছনের অংশ থেকে। ছবি: নাফিজ হোসেন

টিকেট কোথায় পাবেন:
কক্সবাজারের প্রায় সবগুলো ট্যুর অপারেটরদের কাছেই কর্ণফুলী এক্সপ্রেসের টিকেট পাবেন। এছাড়া তাদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে চাইলে ফোন নাম্বার: 01870732590-99

তাদের ফেইসবুক পেইজ:
https://www.facebook.com/karnafulyexpress/

অনলাইনে টিকেট কাটা যাবে কর্ণফুলী এক্সপ্রেসের ওয়েবসাইট থেকে:

http://karnafulyexpressbd.com/

কর্ণফুলী এক্সপ্রেসের নিজস্ব অফিস রয়েছে সুগন্ধা পয়েন্টে হোটেল রূপসী বাংলার নিচে।

প্রথম দিনের ভিডিও এই লিংকে দেখতে পারবেন

বিশেষ অনুরোধ:
সেন্টমার্টিন দ্বীপ একটি ‘প্রতিবেশগত বিপন্ন’ এলাকা। যারা সেন্টমার্টিনে বেড়াতে যাবেন দয়া করে কোন ধরণের অপঁচনশীল দ্রব্য (বিশেষত প্লাস্টিক/পলিথিন) সমুদ্রে বা অন্য কোথাও ফেলবেন না। জাহাজের প্রতিটি ফ্লোরেই পর্যাপ্ত পরিমাণে বিন রাখা আছে, যাবতীয় অঁপচনশীল দ্রব্য সেখানে ফেলবেন।

ফিচার ছবি: নাফিজ হোসেন

Back to top