Author: Ashik Sarwar

সুচিত্রা সেনের বাড়ি ঘুরে এসে বলছি

এসে পড়েছি গল্পের একেবারে শেষ প্রান্তে। গল্পের হাড়ি থেকে নতুন গল্প বের করার আগে দুপুরের খাবারটা সেরে নিলাম। ঘড়িতে ঠিক তিনটা বাজে। অটো ছুটছে সূচিত্রা সেনের বাড়ি।  পাবনার সেই সুশ্রী রমা দাশগুপ্তের সুচিত্রা সেন হবার গল্পটি না হয় যাবার পথেই…

পাবনার জোড় বাংলা মন্দির: শুনি ইতিহাসের ফিসফাস

ঝিরি ঝিরি বৃষ্টির আহবান জানাচ্ছে প্রকৃতি। মানসিক হাসপাতাল থেকে আমরা রাঘবপুরের অটো ঠিক করলাম। এবার আমাদের গন্তব্য দেশের একমাত্র জোড় বাংলো মন্দির দর্শন। যথারীতি অটো আমাদের রাঘবপুর মোড়ে নামিয়ে দিলে এখান থেকে সামন্য হেঁটে গেলেই জোড় বাংলা মন্দির। বাংলার মুসা…

অবাক ভ্রমণ: একটি মানসিক হাসপাতালের সমাচার

বিচিত্র এই দেশে মানসিক হাসপাতালও ঘুরার জায়গা। মানুষের বিনোদনের এত অভাব পরিবর্তন হচ্ছে স্বভাব। মানসিক হাসপাতালটি যে নিজেই রোগাক্রান্ত। বিশ্বের সব দেশেই পরিবারের সংস্পর্শে রেখে করা হয় মানসিক রোগের চিকিৎসা। আর বাংলাদেশে ঠিকানাবিহীন রোগী এই পাগলা গারদের চার দেয়ালে বন্দি…

শতবর্ষী অনুকূল ঠাকুরের সৎসঙ্গ আশ্রম

সকালের ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা আবহাওয়া দুপুর আসতে আসতে তপ্ত রোদে পরিণত হল৷ তার মাঝে ছুটে চলছে আমাদের অটো৷ রায় বাহদুর গেট থেকে অটো ভাড়া করলাম পাবনা মানসিক হাসপাতাল আর অনুকূল ঠাকুরে আশ্রম ঘুরার জন্য। ক্রিং ক্রিং বেল দিয়ে পাশ কাটিয়ে যাচ্ছে…

তাড়াশ ভবনের খোঁজে পাবনা শহরে

পাকশী রেল স্টেশন থেকে বের হলাম আমরা। সকাল প্রায় ১১টা বেজে গেছে। সারা রাতের ক্লান্তি যেন শরীর জাকিয়ে বসেছে। লক্কর ঝক্কর গাড়িতে ভাল ঘুম হয়নি। ঘুম ভাঙ্গানো বটিকা এক কাপ কড়া লিকারের চা। কিন্তু সাথে যদি থাকে ওয়াফি আহমেদ কেমন…

রেলওয়ের শহর ঈশ্বরদীতে একদিন: পাকশী রেল স্টেশন

আমরা আছি রেলের শহরে। রেল ও ট্রেনের এক আশ্চর্য ভুবনে পরিভ্রমণ না করলে কি হবে। হার্ডিঞ্জ ব্রিজের পাশেই তো পাকশী রেল স্টেশন। এবং পাকশী রেল স্টেশন অদ্ভূত স্টেশনও বটে। কারণ এইটি বাংলাদেশের একমাত্র রেল স্টেশন যা সমতল থেকে উচুতে অবস্থিত।…

রেলওয়ের শহর ঈশ্বরদীতে একদিন: হার্ডিঞ্জ ব্রিজ

লাল মসজিদ থেকে অটো ছুটে চলছে হার্ডিঞ্জ ব্রিজের পথে। আগের বার এ পথে এসে ফিরে যেতে হয়েছিল। ব্রিজের কাছে যাবার ভাগ্য হয়নি। এবারও কি হৃদয় ভাঙ্গা গান শুনতে যাচ্ছি হার্ডিঞ্জ ব্রিজের কাছে। হার্ডিঞ্জ ব্রিজ তার গল্পটি শত বছর ধরে শুনিয়ে…

রেলওয়ের শহর ঈশ্বরদীতে একদিন: লাল মসজিদ

প্রধান সড়কে আসার পর হার্ডিঞ্জ ব্রিজ যাবার উদ্দেশে অটো ঠিক করলাম। অটো চলছে মৃদু মন্দ হাওয়ায় হারিয়ে যাই দূরের অজানা গন্তব্যে। বাংলার মাঠ-ঘাট প্রকৃতি জলে হারাইয়া তাহার মাঝে খুঁজি তল। তবে সে তল খুঁজতে গিয়ে এই রকম ভুইফোড়ের মত সবুজের…

রেলওয়ের শহর ঈশ্বরদীতে একদিন: বিষণ্ন জংশন

ভ্রমণ পিপাসু মনটা যেন অদ্ভূত এক নয়টা-পাঁচটা জীবনের বৃত্তের খাচায় বন্দি। সময় পেলেই যেন ছুটে চলে যেতে চায়। কুরবানি ঈদের বন্ধে সেই বের হইছে দীর্ঘ দুই সপ্তাহের বিরতিতে মনটা যেন হাসফাস করছে। আমার অস্থিরতার টনিক হয়েই যেন আসলো ওয়াফি। সদা…

সাতক্ষীরা ডায়েরি: গ্রামের নাম প্রবাজপুর

শখিপুর মোড় থেকে কালীগঞ্জের বাসে উঠলাম। বেশ দ্রুত বেগেই চলছে বাস। পিছে কত পথ, কত মানুষ ছাড়িয়ে সামনে এগিয়ে যাচ্ছে পথিক অজানাকে জানার উদ্দেশ্যে। পথই তো দেয় পথের সন্ধান। পরিব্রাজক, যাযাবর এই পৃথিবীর বুকে এসেছিল বিধায় কিছু মানুষকে চোখ আঙ্গুল…

Back to top